> Element of Ecosystem Class 10 Science notes

Element of Ecosystem Class 10 Science notes

Element of Ecosystem Class 10 Science notes

 
 
 
ELEMENT OF ECOSYATEM
ELEMENT OF ECOSYATEM
                                               
                                                           PART - II
                     
                                   বাস্তুতন্ত্রের উপাদান (Element of Ecosystem)


বাস্তুতন্ত্র সাধারনত দুটি উপাদান নিয়ে তৈরী - যথা A) সজীব উপাদান, B)জড় উপাদান
বাস্তুতন্ত্রের সজীব (বায়োটিক) ও জড় (অবায়োটিক ফ্যাক্টর) সমূহের সংক্ষিপ্ত বিবরণ (Brief description of biotic and abiotic factors of Ecosystem)

A) বায়োটিক বা সজীব উপাদানঃ 
প্রকৃতির সজীব উপাদানগুলি প্রধানত চারভাগে বিভক্ত- ক) উৎপাদক খ) খাদক গ) বিয়োজক ঘ) পরিবর্তক।

ক) উতপাদকঃ 
নিজেদের খাদ্য নিজেরাই তৈরি করতে সক্ষম স্বভোজী জীবকে উৎপাদক বলে।
উৎপাদক প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে সমগ্র পরভোজী জীবজগতকে খাদ্য সরবরাহ করে। অধিকাংশ শেওলা ও অন্যান্য সবুজ উদ্ভিদ উৎপাদক। উৎপাদক দ্বারা উৎপন্ন শর্করা খাদ্যে (গ্লুকোজ) সৌরশক্তি আবদ্ধ থাকে। প্রয়োজনে শর্করা খাদ্য থেকে প্রোটিন ও ফ্যাটজাতীয় খাদ্য তৈরি হয়। শাকাসী বা তৃণভোজী প্রাণীরা সরাসরি উতপাদককে খাদ্যরূপে গ্রহন করে
পরভোজী উপাদান (Heterotrophic components) :-

খ) খাদক (Consumers):-  
খাদ্য উৎপাদনে অক্ষম যে সব জীব প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে উৎপাদকের উপর নির্ভর করে বেঁচে থাকে তাদের খাদক বলে।

ক্লোরফিলবিহীন উদ্ভিদ এবিং কয়েকটি ব্যতিক্রম (ইউগ্লিনা, ক্রাইস্যামিবা) ছাড়া সব প্রাণীই খাদক। খাদক তিন প্রকার যথা -

১) প্রথম সারির (প্রাথমিক) খাদকঃ- উৎপাদককে সরাসরি ভক্ষন করে যারা বেঁচে থাকে তাদের প্রাথমিক খাদক বলে।
উদাহরন- তৃণভোজী সমস্ত প্রাণী অর্থাৎ গরু, ছাগল, হরিণ, হাতি, ইঁদুর, খ্রগোস, কীটপতঙ্গ ইত্যাদি প্রথম সারির খাদক।

২) দ্বিতীয় সারির (গৌন) খাদকঃ- প্রথম সারির খাদককে ভক্ষন করে বেঁচে থাকে এমন প্রাণীদের দ্বিতীয় সারির খাদক বলে।
উদাহরন - চড়ুই, শালিক, ব্যাঙ, কুকুর, বিড়াল, শিয়াল, নেকড়ে ইত্যাদি দ্বিতীয় সারির খাদক।

৩) তৃতীয় বা সর্বোচ্চ সারির (প্রগৌণ) খাদকঃ- খাদ্যের জন্য গৌণ খাদকের উপর নির্ভরশীল খাদককে তৃতীয় বা সর্বোচ্চ সারির খাদক বা প্রগৌণ খাদক বলে।
উদাহরণ - বাঘ, সিংহ, কুমির, সাপ, বাজপাখি ইত্যাদি তৃতীয় বা সর্বোচ্চ সারির খাদক। এরা সম্পুর্ণভাবে মাংসাশী প্রাণী।

গ) বিয়োজক (Decomposer):- বাস্তুতন্ত্রে যে সব জীব মৃত জীবদেহের পচন বা শাটন ঘটিয়ে জটিল জৈব পদার্থকে সরল জৈব পদার্থে পরিণত করে তাদের বিয়োজক বলে।
বিয়োজক নানাপ্রকার এনজাইম নিঃসরন দ্বারা জটিল জৈব যৌগকে সরল জৈব যৌগে পরিণত করে।
উদাহরনঃ- আণুবীক্ষ্ণিক মৃতজীবী জীবগোষ্ঠী, বিশেষত ব্যাকটেরিয়া, অ্যাকটিনোমাইসেটিস ও অন্যান্য ছত্রাক।

ঘ) পরিবর্তক (Transformer) :- যে সব জীব বিয়োজক কর্তিক বিশ্লেষিত সরল জৈব পদার্থকে অজৈব পদার্থে পরিণত করে তাদের পরিবর্তক বলে।

B) আবায়োটিক বা জড় উপাদানঃ 
প্রকৃতির জড় উপাদানগুলি প্রধানত তিনভাগে বিভক্ত করা হয়, যেমন - ক) ভৌত, খ) অজৈব, গ) জৈব।

ক) ভৌত উপাদানঃ 
বাস্তুতন্ত্রে বায়ু, উষ্ণতা ইত্যাদি ভৌত উপাদানগুলির মধ্যে সূর্যালোক প্রধান। সূর্যালোক সকল জীবের শক্তির উৎস। সবুজ উদ্ভিদ সূর্যালোক থেকে সৌরশক্তি সংগ্রহ করে তাকে নিজদেহে রাসায়নিক শক্তিরূপে আবদ্ধ করে। খাদ্য-খাদকের সম্পর্ক থাকায় জীবজগৎ সূর্যালোকের উপর সম্পূর্নভাবে নির্ভরশীল।

খ) অজৈব উপাদানঃ 
মাটি, জল, খনিজ লবণ ইত্যাদি অজৈব জড় উপাদান। মাটিতে বসবাসকারী জীবের সংখ্যা সর্বাধিক। মাটির প্রকৃতি জীবের প্রকৃতিকে বহুলাংশে নিয়ন্ত্রন করে।
মাটির জলধারণ ক্ষমতা, মাটিতে পটাশিয়াম (K), ক্যালশিয়াম (Ca), ম্যাগনেশিয়াম (Mg), সালফার (S), ফসফরাস (F), লৌহ (Fe) প্রভৃতি খনিজ লবণের পরিমাণ এবং বাতাসে অক্সিজেন, নাইট্রোজেন, কার্বন ডাই-অক্সাইড ইত্যাদি গ্যাসগুলির পরিমাণের উপর উদ্ভিদের বৃদ্ধি ও চরিত্র নির্ভর করে। বাস্তুতন্ত্রের প্রকৃতিও পরোক্ষ বিভিন্ন জীবগোষ্ঠী দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হয়।

গ) জৈব উপাদানঃ 
উদ্ভিদ ও প্রাণীর পচনশীল জৈব দেহাবশেষের মিশ্রণে উৎপন্ন বাদামী বর্ণের অসমসত্ত্ব মাটিকে হিউমাস বলে। জমির উর্বরাশক্তি বহুলাংশে হিউমাসের উপস্থিতির উপর নির্ভরশীল।
সুষম বাস্তুতন্ত্র গঠনে জড় উপাদানগুলিও এইভাবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

              বাস্তুতন্ত্রের ক্রিয়া পদ্ধতির পর্যায়সমূহ
               (Operative Steps of Ecosystem)
১. উৎপাদক কর্তৃক সৌরশক্তি শোষণ।
২. পরিবেশ থেকে প্রয়োজনমতো জড় উপাদান সংগ্রহ দ্বারা উৎপাদক কর্তৃক জৈব বস্তু (শর্করা) শংশ্লেষ।
৩. বিভিন্ন স্তরের খাদক কর্তৃক পর্যায়ক্রমে উৎপাদকের তৈরি খাদ্য গ্রহন।
৪. বিয়োজক কর্তৃক মৃত উৎপাদক ও খাদক জীবদেহের বিয়োজন এবং পুনরায় অজৈব বস্তু উৎপাদন।

OTHER NOTES OF THIS CHAPTER- 

NEXT ARTICLE Next Post
PREVIOUS ARTICLE Previous Post
NEXT ARTICLE Next Post
PREVIOUS ARTICLE Previous Post
 

Delivered by FeedBurner